শিল্পের জন্য জমিতে ছাড় ঘোষণা রাজ্যের, বেশি কিনলে বাড়বে ছাড়ের অঙ্ক

রাজ্যে শিল্পের হাল ফেরাতে ছোট ও মাঝারি শিল্পের প্রসারের প্রয়োজনীয়তার কথা বারবারই উল্লেখ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই উদ্দেশ্যে নানা পদক্ষেপও গ্রহণ করেছে বর্তমান সরকার। ছোট ও মাঝারি ব্যবসায়ীদের জন্য এবার সস্তায় জমি দেওয়ার কথা ঘোষণা করল ওয়েস্ট বেঙ্গল স্মল ইন্ডাস্ট্রিজ ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশন লিমিটেড।

বর্তমান পত্রিকার একটি রিপোর্ট জানাচ্ছে, ইতিমধ্যেই জলপাইগুড়ি, উত্তর দিনাজপুর ও মুর্শিদাবাদের তিনটি ইন্ডাস্ট্রিয়াল এস্টেটে বড় মাপের জমি কিনলে ১৫ থেকে ৩৫ শতাংশ ছাড় দেওয়া হচ্ছে। জানা যাচ্ছে আগামী দিনে অন্যান্য এলাকাতেও মিলতে পারে এই সুযোগ।

শিল্প সহায়ক পরিকাঠামো যুক্ত শিল্প তালুক

বর্তমানে ওয়েস্ট বেঙ্গল স্মল ইন্ডাস্ট্রিজ ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশন লিমিটেডের আওতায় রয়েছে মোট ৫০ টি শিল্প তালুক। প্রতিটি শিল্প তালুকেই জল, বিদ্যুত্ ও রাস্তাঘাট সহ সব রকমের পরিকাঠামোগত সুবিধার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে, যেখানে সহজেই কম বিনিয়োগে শিল্প গড়ে তোলা সম্ভব।

শিল্প তালুকগুলোকে প্লটে ভাগ করে শিল্পোদ্যোগীদের কাছে বিক্রি করা হয়েছে। এমনকি বেশ কয়েকটি তালুকে শিল্পপতিদের সুবিধার্থে আচ্ছাদন বা শেডের ব্যবস্থাও রাখা হয়েছে। ফলে পরিকাঠামো বাবদ প্রায় কোনও খরচই করতে হবে না উদ্যোগী সংস্থাকে। এবার এই শিল্প তালুকগুলোতেই ছাড়ে জমি দেওয়া শুরু করছে রাজ্য সরকার।

আরো পড়ুন: ব্যবসা করার পরিবেশে উল্লেখযোগ্য উন্নতি ভারতের, জানাল বিশ্ব ব্যাঙ্ক

যেসব শিল্পতালুকে জমি মিলছে সস্তায়

বর্তমানে জলপাইগুড়ির আমবাড়ি ফালাকাটা, উত্তর দিনাজপুরের ইলুয়াবাড়ি এবং মুর্শিদাবাদের রেজিনগর এই তিনটি শিল্প তালুকে কম দামে জমি বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রশাসন। বেশি পরিমাণ জমি কিনলেই মিলবে এই ছাড়।

আমবাড়ি ফালাকাটায় মোট ১২০টি প্লট ফাঁকা রয়েছে। রেজিনগরে রয়েছে প্রায় ৩০০টি প্লট। দুটি তালুকেই জমির দাম  দেড় লক্ষ টাকা প্রতি কাঠা এবং প্লটগুলো লিজ দেওয়া হবে ৯৯ বছরে জন্য।

একেকটি প্লটের আয়তন পাঁচ থেকে ২০ কাঠার মধ্যে। এই দু’টি শিল্প তালুকে ৩০ কাঠার নীচে জমি কিনলে পাওয়া যাবে ১৫ শতাংশ ছাড়। ৩১ থেকে ৬০ কাঠার জন্য রয়েছে ২৫ শতাংশ ছাড়া। আর ৬০ কাঠার বেশি জমি কিনলে পাওয়া যাবে ৩৫ শতাংশ ছাড়।

অন্যদিকে,  ইসলামপুর তালুকে জমির দাম ধার্য হয়েছে কাঠা পিছু ৭৮ হাজার টাকা। এখানে ৩০ কাঠা পর্যন্ত জমি কিনলে পাওয়া যাবে ২০ শতাংশ ছাড়। ৩১ থেকে ৬০ কাঠা পর্যন্ত জমি নিলে রয়েছে ৩০ শতাংশ ছাড় আর তার থেকে বেশি জমিতে পাওয়া যাবে ৩৫ শতাংশ ছাড়।

আরো পড়ুন: রাজারহাট নিউটাউন সিলিকন ভ্যালির জন্য বরাদ্দ আরও ১০০ একর জমি, ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

অন্যান্য যেসব শিল্পতালুকে জমি পাওয়া সম্ভব

ওয়েস্ট বেঙ্গল স্মল ইন্ডাস্ট্রিজ ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশন লিমিটেডের আওতায় থাকা শিল্প তালুকগুলোর মধ্যে কোথায় কতটা জমি ফাঁকা রয়েছে তার একটি তালিকা তৈরি করেছে প্রশাসন,

এখনও পর্যন্ত চিহ্নিত হয়েছে মোট ১৫টি এস্টেট। এর প্রত্যেকটিতেই এখনও অবধি বেশ কিছু জমি ফাঁকা পড়ে রয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে বোলপুর, দুর্গাপুর, বাউরিয়া, কল্যাণী, সন্তোষপুর, অশোকনগর, রায়গঞ্জ, বেহলা, গড়িয়া ও অন্যান্য অঞ্চল।

কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান বিপ্লব রায় চৌধুরি জানিয়েছেন, প্রশাসনের উদ্দেশ্য হল রাজ্যে শিল্পের প্রসার ঘটানো। আর তার জন্য দামের ব্যাপারে নমনীয় মনোভাব দেখাতে রাজি প্রশাসন। জানা গেছে, প্রথম পর্বের প্রতিক্রিয়ার ভিত্তিতেই আগামী দিনে অন্যান্য এলাকার ক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

তবে যেসব শিল্প তালুকগুলোতে অবস্থানগত সুবিধার জন্য জমির চাহিদা বেশি সেখানে জমির দামে ছাড় দেওয়া সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন বিপ্লববাবু।

অন্যান্য এলাকাতেও শিল্প তালুক গড়ে তুলতে উদ্যোগী সরকার

বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গের মোট ১৮টি মহকুমায় রয়েছে ইন্ডাস্ট্রিয়াল এস্টেট। আরও ৩৮টি মহকুমায় শিল্প তালুক গড়ে তোলার জন্য খাস জমি চিহ্নিত করতে উদ্যোগী হয়েছে রাজ্য প্রশাসন। জমি চিহ্নিত করার জন্য পুজোর আগেই ২১টি জেলার জেলা শাসকদের কাছে চিঠি পাঠান হয়েছে সংশ্লিষ্ট দফতরের তরফে।  

শিল্প গড়ে তোলার পথে জমি যাতে কোনওভাবেই বাধা হয়ে না দাঁড়ায় সে বিষয়ে আগেই নির্দেশ দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রীর সেই নির্দেশ রূপায়ণের লক্ষ্যেই কাজ করছে ওয়েস্ট বেঙ্গল স্মল ইন্ডাস্ট্রিজ ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশন লিমিটেড, আর সস্তায় জমি দেওয়া সেই উদ্যোগেরই একটি অংশ বলে মনে করছে সংশ্লিষ্ট মহল।

তথ্যসূত্রঃ বর্তমান পত্রিকা।

ফিচার্ড ইমেজ ক্রেডিট: Richter Frank-Jurgen, Flickr under CC BY-SA 2.0, No changes were made.

About The Author

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *